Loading...

ইসলামের দৃষ্টিতে কখন সহবাস করা যাবে? সহবাস দিনক্ষণ সময় বিস্তারিত

যখন যৌন সংসর্গ নিষিদ্ধ ? 

ইসলাম মেয়েদের রজঃকালীন বা কুসুম সময়ে যৌন সংসর্গ নিষিদ্ধ করেছে। 

ইসলামের দৃষ্টিতে কখন সহবাস করা যাবে? সহবাস দিনক্ষণ সময় বিস্তারিত

Muslim-Sex-Ritual

কুরআন বলছে: “তারা রজঃ সম্পর্কে আপনাকে জিজ্ঞাসা করে। আপনি বলে দিন রজঃ (মহিলাদের জন্য) একটি অস্বস্তি/অসুস্থতা। রজঃকালীন সময়ে তাদের সাথে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করার উদ্দেশ্যে গমন করিও না; এটা রক্ত বন্ধ হওয়া পর্যন্ত। এরপর তারা নিজেদের পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে নিলে আল্লাহ তোমাদের যেভাবে আদেশ দিয়েছেন সেভাবে স্ত্রী গমন করো। “(সূরা আল বাকারাহ্, ২:২২২)

বিয়ের পর বাসর রাতে কি করবেন কি করবেন না? ইসলাম কি বলে?

শরিয়া অনুযায়ী, মাসিক বা রজঃ এর সময়কাল তিন থেকে দশ দিনের মধ্যে হয় । রক্তপাত তিন দিনের থেকে কম হলে সেটি মাসিক বা রজঃ নয় ; কিন্তু রক্তপাত যদি দশ দিনের বেশি হয় তাহলে সেই স্ত্রী লোকের জন্য তার সাধারণ রজঃকালীন দিন রজঃ হিসাবে গন্য হবে এবং পরবর্তী রক্তপাতময় দিনসমূহ ইস্তেহাদা হিসাবে গণ্য হবে, এবং সেই (রক্তপাতময়) ইস্তেহাদার সময় যৌন সহবাস বৈধ হবে।

ইসলামের দৃষ্টিতে যৌনতা সম্পর্কিত ৪০ টি প্রশ্নোত্তর

সহবাসের জন্য দিন-ক্ষণ

মাসিককলাকালীন সময়ে যোনিপথে যৈন সহবাস সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ। তবে অন্যান্য আবেগময় সম্পর্ক (পায়ুপথ ও যোনি বাদে ) বজায় রাখার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা নেই। তবে নাভি থেকে হাঁটু পর্যন্ত এড়িয়ে চলাটাই ভালো। 

স্ত্রীর সাথে যৌন সংসর্গ নিযুক্ত হবার পর কোন ব্যক্তি যদি আবিষ্কার করেন যে স্ত্রীর মাসিক শুরু হয়েছে তাহলে তিনি অবিলম্বে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিবেন।

এবং উপরে উল্লিখিত আয়াত থেকে স্পষ্ট যে (“… রক্ত বন্ধ হওয়া পর্যন্ত”) রক্ত বন্ধ হয়েছে একবার নারী যদি ওযূ (গোসল) নাও করে তথাপি তার সাথে তার স্বামীর যৌন সংসর্গ হালাল হয়ে যায়। কিন্তু মুজতাহিদরা বলে থাকেন যে, রজঃ হয়ে যাবার পর স্ত্রীকে গোসল বা ওযু করার সময় দেয়া উচিত। সেটা সম্ভব না হলে অন্তত স্ত্রীকে তার যোনিপ্রদেশ ভালোমতো ধুয়ে নেয়ার সুযোগ দাও সহবাস শুরু করার পূর্বে। 

সহবাস করে যেভাবে একটি নারীকে পূর্ণ সুখ দেবেন

এছাড়াও আরো যে কয়টি সময়ে যৌন সহবাস বৈধ নয় 

* নিফাস পরবর্তী রক্তপাতময় সময়ে (সর্বোচ্চ ১০ দিন) 
* রমযান (রামাদান) মাসে দিনের বেলায় (রাতের বেলায় সহবাস বৈধ্ব কুরান-হাদিস দ্বারা সিদ্ধ) 
* মক্কায় তীর্থযাত্রার সময় ইহরাম বাধাকালীন সময়ে ( অন্যান্য সময়ে যৌন সংসর্গ অনুমোদিত) 

যৌন সংগম বা সহবাস যখন মাকরুহ : 

১ ভয়ঙ্কর প্রাকৃতিক ঘটনার সময়, যেমন, চন্দ্রগ্রহণ বা সূর্য্যগ্রহণ, , ঘুর্নিঝড় বা হারিকেন, ভূমিকম্প, সুনামি । 

২ সূর্যাস্ত থেকে মাগরিব পর্যন্ত । 

৩ সূর্যোদয় পর্যন্ত ভোর থেকে । 

৪ চান্দ্র মাসের শেষ তিন রাত। 

৫ প্রতি চান্দ্র মাসের ১৫তম রজনী । 

৬ দশম জিলহজ্জ এর রজনীতে । 

৭ জুনুব এর পর পর । 

যখন যৌন সংসর্গ সিদ্ধ – দিন-ক্ষণ 

কিছু হাদিসের আলোকে যেসব দিন-ক্ষণে যৌন সংগম সিদ্ধ বা অধিকতর কাম্যঃ 

১ রবিবার রাতে । 

২ সোমবার রাতে । 

৩ বুধবার রাতে । 

৪ বৃহস্পতিবার দুপুরে । 

৫ বৃহস্পতিবার রাতে। 

৬ শুক্রবার সন্ধ্যায় । 

৭ যখনই স্ত্রীর যৌন সহবাস করতে চায়। 

স্বামীকে সহবাসের আগে যে ১০টি কাজ করতেই হবে

যখন যৌন সহবাস বাধ্যতামূলক

প্রতি চার মাসের মধ্যে অন্তত একবার স্ত্রীর সাথে যৌন সহবাস পুরুষ মানুষের উপর ওয়াজিব হয়; এটা স্ত্রীর জন্য অন্যতম একটি দাম্পত্য অধিকার হিসাবে বিবেচনা করা হয়। এটা অবশ্যপালনীয় যদি না কোন বৈধ অজুহাত থাকে বা স্ত্রী তার অধিকার ছেড়ে দেয়। 

Loading...

Facebook Comments

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.