Loading...

Husband কেন পরকীয়া তে জড়িয়ে যায়? কিভাবে নিজের দিকে ফিরাবেন

Husband কেন পরকীয়া তে জড়িয়ে যায়, জেনে নিন। কিভাবে নিজের দিকে ফিরাবেন তার গোপন কিছু Health Tips জেনে নিন।পুরুষের স্বভাবজাত বিষয় হচ্ছে একাধিক প্রেম করা। আর বাঘ যেমন নতুন মাংসের স্বাদ চায়, ঠিক তেমন পুরুষেরাও নতুন মেয়ের শরীরের স্বাদ পেতে চায়। কিভাবে আপনার স্বামীকে পরকীয়া থেকে বাঁচিয়ে নিজের কব্জায় রাখবেন তা বুঝে নিন।

Husband কেন পরকীয়া তে জড়িয়ে যায়? কিভাবে নিজের দিকে ফিরাবেন

আপনি যদি নারী হয়ে থাকেন এবং আপনার যদি থেকে থাকে একজন ভালোবাসার পুরুষ বা স্বামী, তাহলে নিশ্চয়ই পরকীয়া ভয়টা আপনার মনের মাঝেও কাজ আছে যে প্রিয় মানুষটি যদিপরকীয়া করে অন্য কারো হয়ে যায়!

মেয়েরা এই ভয়টা বেশী পান কারণ পুরুষেরা সহজেই পরকীয়ার ফাঁদে পা দিয়ে ফেলেন।

মেয়েদের মত পুরুষেরা খুব বেশী হিসাব-নিকাশ করে সম্পর্কে জড়ান না, ফলে প্রায়ই করে ফেলেন ভুল। আবার অনেক পুরুষের স্বভাবজাত বিষয় হচ্ছে একাধিক প্রেম করা।

Husband কেন পরকীয়া করে

কিভাবে বুঝবেন আপনার স্বামী পরকীয়া করছেন

পরকীয়ার সম্পর্ক একটি বিষাক্ত সম্পর্ক। একটি সুন্দর হাসিখুশি সুখের সংসার নিমিষেই গুঁড়িয়ে দেবার ক্ষমতা রাখে এই পরকীয়ার সম্পর্ক। কেউ নিজের ইচ্ছায় এই বিষাক্ত সম্পর্কের পথে পা বাড়ান আবার কেউ মনের অজান্তেই জড়িয়ে পড়েন।

মনের মত স্বামী/স্ত্রী না পেলে অনেকে সচেতন ভাবেই পরকীয়া করেন। আবার, ঘরের স্বামী/স্ত্রীর কাছ থেকে অবহেলার শিকার হয়ে মনের অজান্তেই অন্য কারো সাথে পরকীয়ার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন অনেকে। তবে যেভাবেই হোক পরকীয়ার বিষ সংসারে ঢুকলে সুখ শান্তি কিছুই আর অবশিষ্ট থাকে না। বিয়ের মত একটি পবিত্র বন্ধনকেও বিষাক্ত মনে হয় তখন।

  • সঙ্গী যদি ফোন/ইন্টারনেটে আসক্ত হয়ে পড়েন

যদি আপনাকে সময় না দিয়ে ফোন নিয়ে গোপনে পড়ে থাকেন। যদি কম্পিউটার এ সারাদিন ফেসবুক চালান।  

  • সঙ্গী যদি আপনার ও পরিবারের পেছনে কম সময় ব্যয় করেন
  • সঙ্গীর মুখে নতুন কোন নাম
  • কারণে/অকারণে রেগে যাওয়া
  • যৌনসম্পর্কে উদাসীনতা

আপনাকে যদি আগের মত যৌনসুখ না দিতে চান। আপনি বুঝতে পারবেন, যদি খুব তাড়াতাড়ি বীর্য বের করেই ঘুমাতে চলে যান।  

  • প্রতিদিনের রুটিন খুঁটিয়ে জিজ্ঞেস করা
  • নিজের সৌন্দর্য সম্পর্কে অতিরিক্ত সচেতন হয়ে উঠেন
  • হঠাৎ করে শরীরের মেদ ঝরাতে কসরৎ

স্বামীর অবহেলা থেকে বাঁচতে আপনাকে নানা কৌশল অবলম্বন করতে হবে। এজন্য অনেক NGO নারী অধিকার নিয়ে কাজ করছে, এরকম এ একটি প্রতিষ্ঠান হল সমতা নারী কল্যাণ সংস্থা ( এসএনকেএস)। তাদের ০১৯১২৬১৩৩৭৪ নম্বরে ফোন দিয়ে আপনি মানসিক সাপোর্ট পেতে পারেন। 

Husband কে পরকীয়া হতে দূরে রাখার ৮টি পরামর্শ

১) বেশিভাগ মেয়েই বিয়ের পর একদম আগাগোড়া বদলে যান, আর সন্তান হবার পর তো সেই পরিবর্তন আরও ভয়াবহ। একেবারেই যেন অন্য মানুষ হয়ে ওঠেন। একটা জিনিস মনে রাখবেন, প্রিয় Husband টি কিন্তু বিয়ের আগের আপনাকে দেখেই ভালোবেসেছেন। তাই বিয়ের পর নিজেকে ধরে রাখুন। এতটাও বদলে যাবেন না যে Husband এর কাছে আপনাকে অচেনা মনে হয়।

২) বিনা কারণে Husband কে অমূলক সন্দেহ করা বন্ধ করুন বা সন্দেহ করে কথা শোনানো বন্ধ করে। এই অমূলক সন্দেহ করার প্রবণতা Husband এর মনে আপনার প্রতি অনীহা ও অন্য নারীর সাথে পরকীয়া করতে আগ্রহী করে তোলে।

৩) স্বামীকে শাসন করার চেষ্টা করবেন না। সর্বদা এটা করো সেটা করো বলতে থাকবেন না। তিনি আপনার জীবনসঙ্গী, বাড়ির কাজের লোক নন। অতিরিক্ত শাসন করলে মানুষটা নিশ্চিত পরকীয়া বা অন্য নারীর দিকে ঝুঁকবেন।

৪) স্বামীকে ঘিরে রাখুন ভালোবাসায়। প্রেমিকার মত ভালবাসুন, মিষ্টি রোমান্টিকতায় ভরে রাখুন তাঁর মন যেন আপনাদের ভালোবাসা ও বিশ্বাসের বন্ধ অটুট থাকে।

৫) আপনার স্তনের আকার ছোট হলে, পাছা ততোটা ভরাট আর নরম না হলে, আপনার Husband এর চোখ অন্য নারীর দিকে যাবেই। এজন্য নিয়মিত আপনার বুকের সৌন্দর্যের উপর, ঝুলে গুলে বা নরম তুলোর মত হলে আর ভালবাসা আগের মত থাকবে না। বডি নিয়মিত মেসেজ করুন, মেসেজ কিভাবে করতে হবে জানতে ফোন দিতে পারেন, Women’s Message Care Center এ। ফোন – ০১৯১২৬১৩৩৭৪

Full Body Massage করে ঠিক রাখুন Body Shape, পান স্বামীর ভালবাসা আরও বেশি। দেখে আসুন এক্সারসাইজগুলো

৬) একটা কথা মনে রাখবেন, দাম্পত্যের ক্ষেত্রে তৃতীয় কোন ব্যক্তিকে চোখ বুজে বিশ্বাস করবেন না। যতই হোক ঘনিষ্ঠ বান্ধবী বা প্রিয় কাজিন, কারো কথাই চোখ বুঝে বিশ্বাস করবেন না ও কাউকে নিজেদের দাম্পত্যে কথা বলার সুযোগ দেবেন না। স্বামী কে বশ করার সবচেয়ে ভাল উপায় হল, তার পেনিস চুষে সব বীর্য বের করে দেয়া, এতে তার সেক্স যেমন অন্য নারীর জন্য কমে যাবে, ঠিক একই সাথে আপনার জন্য প্রতিটি বীর্য ফোঁটার জন্য সমপরিমাণ ভালবাসার উদয় হবে।

৭) নিজের শ্বশুরবাড়ির সবাইকে ভালবাসুন, সকলের সাথে ভালো ব্যবহার করুন। চেষ্টা করুন মানিয়ে নিতে। আপনি তাঁর পরিবারকে ভালো না বাসলে এটা খুবই স্বাভাবিক যে স্বামী আপনার প্রতি ভালোবাসা হারিয়ে ফেলবেন।

৮) কখনো এমন কিছু বলবেন না যাতে স্বামীকে অক্ষম বলা হয়। স্বামীকে অক্ষম বললে সে কোন না কোন ভাবে তার সক্ষমতা প্রমান করতে চাবে। আর অন্য কেও জীবনে আসলে সে সক্ষমতা বেড়ে যায় কয়েকগুন। তাঁর বেতন, চাকরি বা অন্য কিছু নিয়ে খোটা দেবেন না। বা এমন বলবেন না যে “আমি ছাড়া তোমাকে আর কে বিয়ে করবে”। এইসব কথায় পুরুষেরা রেগে গিয়ে স্ত্রীকে “উচিত শিক্ষা” দেয়ার জন্য পরকীয়া করে বসেন। 

Loading...

Facebook Comments

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.