Home > জীবনযাপন > কারা আপনার জীবনে বিষ ঢালছে? চিনে রাখুন বন্ধুবেশি শত্রুদের
Loading...

কারা আপনার জীবনে বিষ ঢালছে? চিনে রাখুন বন্ধুবেশি শত্রুদের

কারা আপনার জীবনে বিষ ঢালছে? চিনে রাখুন বন্ধুবেশি শত্রুদের এই পোস্ট টি পড়ে। আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে এমন লোকদের সাধারণ কয়েকটি বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হলো। যাতে আপনি এদের পুরোপুরি এড়িয়ে চলতে পারেন। 

চারপাশে বিষাক্ত লোকদের আনাগোনা আপনার জন্য হতে পারে খুবই বিরক্তি উৎপাদক। আর এদের সঙ্গে সময় কাটালে আপনার শক্তিরও অপচয় হবে প্রচুর। এরা সবসময়ই আপনাকে হতাশ করবে। সুতরাং এদের চেনাটা আপনার জন্য জরুরিই বটে। এখানে আপনার জন্য ক্ষতিকর হতে পারে এমন লোকদের সাধারণ কয়েকটি বৈশিষ্ট্য তুলে ধরা হলো। যাতে আপনি এদের পুরোপুরি এড়িয়ে চলতে পারেন।

Fake-Friendship
Fake-Friendship

বিষাক্ত লোকদের সবচেয়ে কমন একটি বৈশিষ্ট্য হলো এদের সঙ্গে প্রতিটি ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়াই নেতিবাচক হয়। যা আপনার ইতিবাচক চিন্তা-ভাবনাকে সীমিত করে দিতে পারে। এদের এড়িয়ে চলাটাই আপনার জন্য সবচেয়ে ভালো হবে। সুতরাং কোনো উপসংহার টানার আগে এদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যগুলো জেনে নিন।

১. অন্যকে দিয়ে স্বার্থোদ্ধার প্রবণতা
এরা নিজেদের জন্য যা দরকার তার সবই অন্যদের দিয়ে কৌশলে করিয়ে নিতে চায়।

এদের কাছে অন্যরা শুধু তাদের নিজেদের লক্ষ্য-উদ্দেশ্যগুলো হাসিল করার উপায়। এরা অন্যদের ঘাড়ে পা রেখে সামনে এগিয়ে যেতে কোনো দ্বিধা করে না।

২. সবকিছুরই সমালোচনা করে
নিজেদের স্বার্থের বিরুদ্ধে যায় বা যেতে পারে এমন সবকিছুরই নেতিবাচক সমালোচনা করে এরা। এমনকি নিজেদের ছাড়া কারো মধ্যেই ভালো কিছু দেখতে পায় না।

mastercard

৩. দায় স্বীকার করে না
এরা নিজেদের অনুভূতিগুলোর ব্যাপারে কোনো দায় স্বীকার করে না। কেউ যদি তাদের অনুভূতিগুলোর দিকে অঙ্গুলি নির্দেশ করে তখন তারা সবসময়ই নিজেদের সাফাই গাইতে থাকে। আর এরা নিজেদের কোনো কাজেরই দায় স্বীকার করে না।

৪. এরা কখনো ক্ষমা চায় না
এরা কখনো কোনো কাজের জন্য ক্ষমা চায় না। কারণ তাদের ধারণা তারা যা করে তার সবই ঠিক আছে। তারা মনে করে তারা নিজেরা কোনো ভুল করতে পারে না। এমনকি এরা নিজেদের ঘনিষ্ঠ সম্পর্কগুলোকেও শুধু ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যেই ব্যবহার করতে চায়। আর এরা সবসময়ই নিজেকে Victim হিসেবে উপস্থাপন করে অন্যের করুণা পেতে চায় এবং মনোযোগ আকর্ষণ করতে চায়।

৫. অসঙ্গতি
আপনি এদেরকে সহজে বুঝতে পারবেন না। কারণ এরা ক্ষণে ক্ষণেই ভোল পাল্টায়। নিজেদের ভিন্ন ভিন্ন লক্ষ্য-উদ্দেশ্য অনুযায়ী তারা তাদের মনোভাব, দৃষ্টিভঙ্গি এবং আচরণও বদলায়। এমনকি উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য এরা মেকি দয়াও প্রদর্শণ করে।

৬. আপনার নিজেকে তাদের কাছে প্রমাণ করতে বলবে
এরা আপনাকে বলবে তাদেরকে অন্য কারোর সঙ্গে তুলনামূলকভাবে বাছাই করতে। অন্য কারোর চেয়ে তাদেরকে বেশি পছন্দ করতে। এর মধ্য দিয়ে তারা আসলে ভাগ করো এবং কব্জা করো নীতি প্রয়োগ করে। ফলে আপনাকে এমন পরিস্থিতিতে ফেলবে যে আপনি তাদেরকে ছাড়া আর কারো সঙ্গে যেতে পারবেন না। তাদেরকে সন্তুষ্ট করার জন্য আপনাকে অন্যদের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করতে হবে!

 

Check Also

Boobs-Tattoo

ব্রেস্টে আকার জন্য সেরা কয়েকটি tattoo design

আমাদের দেশের মেয়েরা যুগের সাথে তাল মিলিয়ে ট্যাটু আঁকতে শিখে গেছে। অনেকের হাতে, পেটে, পিঠে, …

Loading...

One comment

  1. এই আর্টিকেলটি পড়ে সত্যিই অনেক কিছু জানলাম |
    ধন্যবাদ আপনাকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *