লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে

লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে। লিঙ্গ শিথিলতা আজ পুরুষের এক অন্যতম সমস্যা। 

লিঙ্গ শিথিলতা জনিত সমস্যা খুব-ই সাধারণ। ভয়, হীনমন্যতা, লজ্জা ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে এসব সমস্যা লুকিয়ে রেখে হতাশায় জীবন যাপন করেন অগণিত পুরুষ। আবার চি‌কিৎস‌কের শরণাপন্ন হওয়াকেও অযা‌চিত মনে করেন অনেকে। মান‌সিকভা‌বে শ‌ক্তিশালী হ‌য়ে সমস্ত ভয়‌কে জয় করুন। উপরে উল্লিখিত ঘরোয়া নিয়ম কানুন মেনে এবং শারী‌রিক ও মানসিক অবস্থার উন্নয়নের মাধ্যমে সহজেই লিঙ্গ শিথিলতা জনিত সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। হতাশা ঝে‌ড়ে ফে‌লে চেষ্টা চা‌লি‌য়ে যান; সফলতা ধরা দে‌বেই, দে‌বে।

পুরুষদের যৌন স্বাস্থ্য ঠিক থাকার পিছনে মানসিক অবস্থার প্রভাব উল্লেখযোগ্য। শতকরা ৯০% মানুষ এই বিষয়টি নিয়ে দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভোগেন, বিষয়টি চেপে যান এবং লজ্জায় সঙ্গীর সাথে আলোচনা করেন না। জ্বর হলে আপনি যেমন ডাক্তারের কাছে যান, সঙ্গীর সেবা শুশ্রূষা নেন, তেমনি এই ধরনের সমস্যার ক্ষেত্রেও আপনাকে কথা বলতে হবে; আপনার সঙ্গীর সাথেই কথা বলতে হবে। 

লিঙ্গ শিথিলতা সমস্যা থে‌কে প‌রিত্রা‌নের জন্য কিছু নি‌র্দেশনাঃ 

লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে

  1. নিয়‌মিত ব্যায়াম ও কা‌য়িক প‌রিশ্রম করতে হবে; 
  2. ধূমপান, মদ্যপান, তামাক এড়িয়ে চলতে হবে;
  3. প্রচুর পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেতে হবে;
  4. ওজন, রক্তচাপ ও কোলেস্টরেল নিয়ন্ত্রনে রাখতে হবে;
  5. হীনমন্যতা, দুশ্চিন্তা, হতাশা, ভয় ঝে‌ড়ে ফেল‌তে হবে;
  6. পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমাতে হবে, রাতে ৭-৮ ঘন্টা;
  7. তরমুজ, বেদানা বা ডালিমের জুস খুবই উপকারী;
  8. কাছের মানুষের সাথে বিষয়টি শেয়ার করুন।
লিঙ্গ শিথিলতা সমস্যার সমাধা‌নের জন্য অ‌ভিজ্ঞ চি‌কিৎস‌কের পরামর্শ ব্য‌তি‌রে‌খে অ‌নে‌কেই ওষু‌ধ সেবন ক‌রে। যা অস্থায়ীভা‌বে সেক্স বৃ‌দ্ধি বা লিঙ্গ‌কে দৃঢ় ক‌রে তুল‌লেও; পরবর্তীতে সেই সমস্যা স্থায়ীভা‌বে প্রকট আকার ধারণ ক‌রে। এই ধরণের ঔষধের তাৎক্ষ‌ণিক ও সাধারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হল মাথাব্যথা, রক্তচাপ হ্রাস, মাথা ঝিমঝিম করা, চোখে মুখে লাল ভাব, হজমের সমস্যা, নাক বন্ধ হয়ে যায়, কারও কারও দৃষ্টি সমস্যা দেখা দেয়। ধী‌রে ধী‌রে এক সময় লিভা‌রের ক্ষ‌তি এবং যৌন ক্ষমতা নি:শেষ হ‌য়ে যায়। এসব ঔষধের প্রভাবে পুরুষদের যৌন জীবন ও স্বাস্থ্য স্থায়ীভা‌বে হুমকির মুখে পড়তে পারে।
 
Limp-Penis
 
ত‌বে ভ‌য়ের কোন কারণ নেই। আ‌গে লিঙ্গ শিথিলতা রোগের একটিই চিকিৎসা ছিল আর তা হল, অপারেশনের মাধ্য‌মে লিঙ্গের মধ্যে প্রোসথেটিক ডিভাইস স্থাপন করা। তবে এখন ওষুধের সাহায্যেও এ রোগের চিকিৎসা করা যায়। য‌দি ওষুধের সাহায্যে চিকিৎসা না হয় তখনই অপারেশন করা হয়। অ‌ভিজ্ঞ ও রেজিস্টার্ড চি‌কিৎসকই নির্ধারণ করবে ওষুধ না সার্জারি প্রয়োজন।
 
পুরুষ লিঙ্গ শিথিলতা ক্ষমতা যেসকল স্নায়ু বা নার্ভের দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয় সেগুলো কোনো আঘাতের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ হলে;
নির্দিষ্ট কিছু ঔষধ যেমন- Antidepressants, Antihistamines এবং উচ্চ রক্তচাপ, ব্যাথা ও প্রো‌স্টেট ক্যান্সারের জন্য যে সকল ঔষধ দেওয়া হয় তা ব্যবহারের কারণে;
 
মদ্যপান ও মাদক সেবনে এ রোগের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।
দীর্ঘদিন সাইকেল চালানোর জন্য স্নায়ু সংকুচিত হয়ে যায় এবং লিঙ্গে রক্তপ্রবাহ কমে যায়। যার ফলে কিছু সময়ের জন্য লিঙ্গ শিথিলতা ক্ষমতা কমে যেতে পারে।
 

লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে

পুরুষত্বহীনতা, অকাল বীর্যপাতলিঙ্গ শিথিলতা সমস্যা দূর করে সুস্থ যৌনজীবন দেয় জাফরান

বিশ্বের সবচেয়ে দামী মশলা জাফরান। স্যাফরন বা কেশর নামেও এটি পরিচিত৷ এই মশলা নামীদামী অনেক খাবারে ব্যবহৃত হয়। খাবারের স্বাদ, ঘ্রাণ, রঙ বাড়িয়ে তুলতে এই ‘গোল্ডেন স্পাইস’ এর জুড়ি নেই। তবে জাফরানের কাজ শুধু এরমধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। জাফরানের মধ্যে রয়েছে অসাধারণ ঔষধিগুণ। জাফরানে রয়েছে বিস্ময়কর রোগ নিরাময় ক্ষমতা৷মাত্র ১ চিমটে জাফরান আপনাকে প্রায় ২০ টি শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে।

১. জাফরানে রয়েছে পটাশিয়াম যা উচ্চ রক্ত চাপ ও হৃদপিণ্ডের সমস্যা জনিতরোগ দূর করে।

২. হজমে সমস্যা এবং হজম সংক্রান্ত যে কোনও ধরনের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে জাফরান।

৩. জাফরানের পটাশিয়াম আমাদের দেহে নতুন কোষ গঠন এবং ক্ষতিগ্রস্থ কোষ সারিয়ে তুলতে সহায়তা করে।

৪. জাফরানের নানা উপাদান আমাদের মস্তিষ্ককে রিলাক্স করতে সহায়তা করে, এতে করে মানসিক চাপ ও বিষণ্ণতা জনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়৷

৫. মেয়েদের মাসিকের অস্বস্তিকর ব্যথা এবং মাসিক শুরুর আগের অস্বস্তি দূর করতে জাফরানের জুড়ি নেই।

৬. নিয়মিত জাফরান সেবনে শ্বাস প্রশ্বাসের নানা ধরণের সমস্যা যেমন অ্যাজমা,পারটুসিস, কাশি এবং বসে যাওয়া কফ দূর করতে সহায়তা করে।

৭. জাফরানের ক্রোসিন নামক উপাদানটি অতিরিক্ত জ্বর কমাতে সহায়তা করে।

৮. জাফরানের রয়েছে অনিদ্রা সমস্যা দূর করার জাদুকরী ক্ষমতা। ঘুমোতে যাওয়ার আগে গরম দুধে সামান্য জাফরান মিশিয়ে পান করলে অনিদ্রা সমস্যা দূর হবে ।

৯. সামান্য একটু জাফরান নিয়ে মাড়িতে ম্যাসেজ করলে মাড়ি,দাঁত এবং জিহ্বার নানা সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব৷

mastercard

১০. গবেষণায় দেখা যায় জাফরান দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে এবং চোখের ছানি পড়া সমস্যা প্রতিরোধে কাজ করে৷

১১. জাফরানের অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান বাতের ব্যথা,জয়েন্টে ব্যথা,মাংসপেশির ব্যথা এবং দুর্বলতা দূর করতে অব্যর্থ ঔষুধ৷

১২. অ্যাসিডিটির সমস্যা থেকে রেহাই দিতে পারে সামান্য একটু খানি জাফরান৷

১৩. জাফরানের ক্যান্সার প্রতিরোধ করার ক্ষমতা আছে৷

১৪. জাফরান দেহের কলেস্টোরল এবং ট্রাইগ্লিসারাইড নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

১৫. মস্তিস্কের গঠন উন্নত করতে জাফরানের ভূমিকা অনস্বীকার্য। জাফরান স্মৃতিশক্তি এবং চিন্তা ক্ষমতা উন্নত করে৷এছাড়াও আলজাইমার এবং পার্কিনসন রোগ থেকে দূরে রেখে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস থেকে কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রকে বাঁচায়৷

১৬. কিডনি, যকৃৎ এবং মুত্রথলির রোগ থেকে মুক্তি দেয় জাফরান৷

১৭. যষ্ঠিমধু এবং দুধের সঙ্গে জাফরান মিশিয়ে মাথায় লাগালে চুল পড়া বন্ধ হয় এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে৷

১৮. পুরুষত্বহীনতা, অকাল বীর্যপাত ও লিঙ্গ উথান সমস্যা দূর করে সুস্থ যৌনজীবন দেয় জাফরান৷

১৯. টিউমারের রোধ বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে৷

২০. ত্বকে ঔজ্বল্য বাড়ায় এবং বলিরেখা দূর করতে সহায়তা করে৷

লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে। 

Afsana Jamin

আমি আফসানা। Health Bangla ডট কম এর একজন লেখক। পেশায় MBBS Doctor। বর্তমানে Internship শেষ করে Training এ আছি। আমাকে আপনার সমস্যার কথা লিখে পাঠান afsanaspell@gmail.com ইমেইল এ।

One thought on “লিঙ্গ শিথিলতা দুর করুন খুব সহজে ঘরোয়া উপায়ে

  • October 6, 2017 at 9:36 pm
    Permalink

    সহ বাসের সময় নারী তৃপ্তি লাভের লক্ষণ অনেকে আমাদের কাছে জানতে চেয়েছেন। তাদের জন্য লক্ষণ গুলো দেয় হল। BD Health Tips

    সহ বাসের সময় নারীর তৃপ্তি লাভের 10 টি লক্ষণ :
    নারী শরীর নুইয়ে পড়ে ।
    নারীর সারাটা শরীর যেন অবসান নেমে আসে ।
    দ্রুত হৃদস্পন্দন হতে থাকে ।
    আবেশে চোখ বুজে থাকে ।
    নারীর যোনি থেকে রসস্রাব ক্রমাগত নির্গত হয় ।
    নারীর সারা শরীর পুনঃপুনঃ শিহরণ হতে থাকে ।
    ধীরে ধীরে গোঁ গোঁ বা প্রাণীর অনুরূপ শব্দ বের হতে পারে ।
    সে পুরুষকে জোর করে বুকে চেপে ধরে রাখতে পারে ।
    সারা শরীর কাঁপা দিয়ে উঠতে পারে ।
    সব শেষে অনেকে জোরে জোরে হাসে আবার অনেকে মুচকি হাসি দিতে দিতে চোখ বুজে ঘুমিয়ে পড়ে।

    Reply

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *