Kidney Fail

কিডনি ভালো রাখতে চান? এই খাবার এর লিস্টটি মেনে চলুন

যারা কিডনি সমস্যায় ভুগছেন, তাদের খাওয়াদাওয়া নিয়মমাফিক হওয়া প্রয়োজন। তাহলে আপনি অনেকটা ভালো থাকতে পারবেন। কিডনি সমস্যায় কী ধরনের খাওয়াদাওয়া করবেন তা নিয়ে এবারের আয়োজন—
 
কিডনি সমস্যায় সাধারণত শরীর থেকে অতিরিক্ত পানি, লবণ ও পটাসিয়াম নির্গমনে অসুবিধা দেখা যায়। কিডনির কার্যপ্রক্রিয়া ধীর গতিতে হলে বা কিডনি ফেলিওর হলে শরীরে ফসফরাসের পরিমাণ বেড়ে যায়। ফসফরাসের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার কারণে হাড় থেকে অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম ক্ষয় শুরু হয়। এর থেকে অস্টিওপোরোসিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই সময়ে পটাসিয়াম ও সোডিয়ামসমৃদ্ধ খাবার, লবণ ও ফসফরাসসমৃদ্ধ খাবার নিয়ন্ত্রণ করা প্রয়োজন। চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী মেপে পানি পান করুন। কারণ কিডনির অতিরিক্ত পানি ফ্লাশ আউট করার ক্ষমতা কমে যায়।
 
কী ধরনের খাবার এড়িয়ে চলবেন
পটাসিয়ামসমৃদ্ধ ময়দা, কমলা লেবু, কলা, খেজুর, টমোটো, আলু, কুমড়া, পালংশাক না খাওয়াই ভালো। ফসফরাসসমৃদ্ধ ভাত, সয়াবিন, গাজর, সরষে, গরুর দুধ। লবণ কম পরিমাণে খাবেন। অতিরিক্ত লবণ হাই ব্লাড প্রেসারের সমস্যা তৈরি করে।
 
কী ধরনের খাবার খেতে পারেন
ফলের মধ্যে আঙুর, নাশপাতি, আপেল, তরমুজ খেতে পারেন। সবজির মধ্যে শসা, লেটুস, পেঁয়াজ, ফুলকপি খেতে পারেন।
 
কিডনি ভালো রাখতে
 
কিডনির কার্যকলাপ ভালো রাখার জন্য শুরু থেকেই বিশেষ যত্নের প্রয়োজন।
 
* ঘন ঘন পেইন কিলার না খাওয়াই ভালো।
 
* সারাদিনে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। খুব কম পরিমাণে পানি পান করলে রেনাল সিস্টেমের ওপর প্রেসার পড়তে পারে।
 
* ক্রোনিয়াম কম্পাউন্ড রয়েছে এমন স্পোর্টস ড্রিংক এড়িয়ে চলুন।
 
* লিভারের মতো কিডনি ভালো রাখার জন্য অ্যালকোহল ও সিগারেট কম পরিমাণে খেতে পারলে ভালো হয়। কারণ অতিরিক্ত অ্যালকোহল ও সিগারেট রেনাল সিস্টেমের ওপর প্রেসার ফেলে।
 
ডায়াবেটিক প্রতিরোধ করার চেষ্টা করুন। নিয়মিত এক্সারসাইজ করুন। ফ্যাট ও অতিরিক্ত মিষ্টিজাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন।
 
* কিডনি সংক্রান্ত ডায়েট চার্ট মেনে চলুন।
 
* কিডনিতে বিশেষ কিছু সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই ডাক্তার দেখাবেন।
Dhaka Sex Video
মেয়েদের Musterbation

Leave a Comment